কায়কোবাদ

প্রণয়ের প্রথম চুম্বন

কায়কোবাদ

 

 

(১)

 

মনে কি পড়ে গো সেই প্রথম চুম্বন!

যবে তুমি মুক্ত কেশে

ফুলরাণী বেশে এসে,

করেছিলে মোরে প্রিয় স্নেহ-আলিঙ্গন!

মনে কি পড়ে গো সেই প্রথম চুম্বন?

 

(২)

 

প্রথম চুম্বন!

মানব জীবনে আহা শান্তি-প্রস্রবণ!

কত প্রেম কত আশা,

কত স্নেহ ভালবাসা,

বিরাজে তাহায়, সে যে অপার্থিব ধন!

মনে কি পড়ে গো সেই প্রথম চুম্বন!

 

(৩)

 

হায় সে চুম্বনে

কত সুখ দুঃখে কত অশ্রু বরিষণ!

কত হাসি, কত ব্যথা,

আকুলতা, ব্যাকুলতা,

প্রাণে প্রাণে কত কথা, কত সম্ভাষণ!

মনে কি পড়ে গো সেই প্রথম চুম্বন!

 

(৪)

 

সে চুম্বন, আলিঙ্গন, প্রেম-সম্ভাষণ,

অতৃপ্ত হৃদয় মূলে

ভীষণ ঝটিকা তুলে,

উন্মত্ততা, মাদকতা ভরা অনুক্ষণ,

মনে কি পড়ে গো সেই প্রথম চুম্বন!

দেশের বাণী

কায়কোবাদ

 

 

কে আর বুঝিবে হায় এ দেশের বাণী?

এ দেশের লোক যারা,

সকলইতো গেছে মারা,

আছে শুধু কতগুলি শৃগাল শকুনি!

সে কথা ভাবিতে হায়

এ প্রাণ ফেটে যায়,

হৃদয় ছাপিয়ে উঠে - চোখ ভরা পানি।

কে আর বুঝিবে হায় এ দেশের বাণী!

এ দেশের লোক যত

বিলাস ব্যসনে রত

এ দেশের দুঃখ কিছু নাহি বুঝে তারা।

দেশ গেল ছারেখারে,

এ কথা বলিব কারে?

ভেবে ভেবে তবু মোর হয়ে গেছে সারা!

প্রাণভরা হাহাকার

চোখ ভরা অশ্রুধার,

এ হৃদি যে হয়ে গেছে মরুভূমি-পারা!

আযান

কায়কোবাদ

 

 

কে ওই শোনাল মোরে আযানের ধ্বনি।

মর্মে মর্মে সেই সুর, বাজিল কি সুমধুর

আকুল হইল প্রাণ, নাচিল ধমনী।

কি মধুর আযানের ধ্বনি!

আমি তো পাগল হয়ে সে মধুর তানে,

কি যে এক আকর্ষণে, ছুটে যাই মুগ্ধমনে

কি নিশীথে, কি দিবসে মসজিদের পানে।

হৃদয়ের তারে তারে, প্রাণের শোণিত-ধারে,

কি যে এক ঢেউ উঠে ভক্তির তুফানে-

কত সুধা আছে সেই মধুর আযানে।

নদী ও পাখির গানে তারই প্রতিধ্বনি।

ভ্রমরের গুণ-গানে সেই সুর আসে কানে

কি এক আবেশে মুগ্ধ নিখিল ধরণী।

ভূধরে, সাগরে জলে নির্ঝরণী কলকলে,

আমি যেন শুনি সেই আযানের ধ্বনি।

আহা যবে সেই সুর সুমধুর স্বরে,

ভাসে দূরে সায়াহ্নের নিথর অম্বরে,

প্রাণ করে আনচান, কি মধুর সে আযান,

তারি প্রতিধ্বনি শুনি আত্মার ভিতরে।

নীরব নিঝুম ধরা, বিশ্বে যেন সবই মরা,

এতটুকু শব্দ যবে নাহি কোন স্থানে,

মুয়াযযিন উচ্চৈঃস্বরে দাঁড়ায়ে মিনার ‘পরে

কি সুধা ছড়িয়ে দেয় উষার আযানে!

জাগাইতে মোহমুদ্ধ মানব সন্তানে।

আহা কি মধুর ওই আযানের ধ্বনি।

মর্মে মর্মে সেই সুর বাজিল কি সমধুর

আকুল হইল প্রাণ, নাচিল ধমনী।